ফেসবুক এর উপর নির্ভরশীল না থেকে নিজের ওয়েবসাইট শুরু করুন।

Share Now:

সাকিব সাহেব এবং রিফাত সাহেব ২ জনই ব্যবসায়ী এবং তারা অনেক ভাল বন্ধু। তারা ২জন মিলে জামাকাপড় এর ব্যবসা শুরু করে। ব্যবসা ভালই চলতে থাকে। রাসেল সাহেব ও ১জন ব্যবসায়ী আর তিনি ও জামাকাপড় এর ব্যবসা করেন। তারা ৩ জনই পরিচিত।

২ বছর পর তাদের সবার ব্যবসা কমে যাচ্ছে। তারা টেনশন এ পড়ে গেল কীভাবে তাদের ব্যবসা ফেরান যাই। তখন তারা যুগ এর সাথে তাল মেলাতে ফেসবুক পেজ এর মাধ্যমে অনলাইন ব্যবসা শুরু করে। আস্তে আস্তে তাদের ব্যবসার অবস্তা আবার স্বাভাবিক হয়ে গেল। আস্তে আস্তে তাদের ৩ জন এরই পরিচিতি বাড়তে থাকল। তারা ৩ জন ১ টা সেমিনার এ দাওয়াত পেল এবং ৩ জনই সেখানে গেল। সেখানে অনেক উদ্যোক্তা আসলো যারা অনেক কিছু বল্ল এবং অনেক ব্যবসার জন্য অনেক টিপস দিল।

সেমিনার এ আসা ১জন উদ্যোক্তা তার কিছু মত প্রকাশ করল। যেটা কিছু মানুষের কাছে হাস্যকর মনে হল আবার কিছু মানুষ অনেক সিরিয়াস ভাবে নিল। তিনি বল্ল আস্তে আস্তে অনলাইন ব্যবসাতে ফেসবুক পেজ এর থেকেও চলমান কিছু আসবে সেটা ওয়েবসাইট। আর তাছাড়া আপনারা ফেসবুক এর উপর নির্ভরশীল না থেকে নিজের ওয়েবসাইট শুরু করুন। এখন অনলাইন ব্যবসার শুরুতেই ওয়েবসাইট এর জন্য ব্যবসার নামে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনে রাখুন। তারপর যখন আপনার হাতে টাকা আসবে তখন ওয়েবসাইট বানাই নিবেন। এখন যদি ডোমেইন কিনে না রাখেন তাহলে যখন কিনতে যাবেন তখন যদি দেখেন আপনার ব্যবসার নাম এর ডোমেইন আগে থেকেই অন্য কেও কিনে রাখছে তখন কি আপনার দারা ব্যবসার নাম বদলানো সম্ভব হবে তাই আগে থেকেই ডোমেইন টা কিনে রাখুন।

আপনার ওয়েবসাইট নতুন পপুলার না তাই বলে হার মেনে যাবেন? আপনার কাছে সামাজিক মাধ্যমের সবথেকে বড় প্লাটফর্ম আছে ফেসবুক। আপনি ফেসবুককে ব্যাবহার করেন আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য। আপনার যত নতুন ক্রেতা বা পুরানো ক্রেতা আছে যারা সব সময়ই আপনার কাছ থেকে লেনদেন করে আপনি তাদের কাছে আপনার ওয়েবসাইট এর নাম বলবেন এবং তারা অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইট টা ১বার হলেও ঘুরে আসবে আর ওয়েবসাইট এর নাম মনে রাখবে। আপনি ফেসবুক পেজ এ যে থিঙ্কিং বা আইডিয়া নিয়ে ব্যবসা করেন ওয়েবসাইট এ সেম থিঙ্কিং বা আইডিয়া নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। চেষ্টা করলে সব কিছু সম্ভব।

সাকিব, রিফাত, রাসেল আর সেমিনার এ থাকা সকলে কথা গুলা শুনল। সাকিব আর রিফাত এর কাছে কথা গুলা হাস্যকর মনে হলেও রাসেল সাহেব কথা গুলা খুব সিরিয়াস ভাবে নিলো। ৩ বছর পর আস্তে আস্তে সাকিব, রিফাত এর ব্যবসা নষ্ট হয়ে গেল। তারা কোথাও গিয়ে তাদের ব্যবসার অনলাইন পরিচয় দিতে পারেনা। কেও যদি তাদের ওয়েব পেজ আর নাম জানতে চাই তখন তারা বলতে পারেনা। তাদের ফেসবুক এর পেজ টা দুর্ভাগ্যবসত নষ্ট হয়ে যাই। তারা ফেসবুক আর উপর নির্ভরশীল ছিল।

আর অন্যদিকে রাসেল সাহেব সেমিনার থেকে আসার কিছু দিন পরই তার ব্যবসার নাম এ ডোমেইন কিনে ওয়েবসাইট তৈরি করেন। এবং ওই উদ্যোক্তার কথা গুলা মনে রেখে সে তার নিয়মে তার সকল ক্রেতাদের কাছে তার ওয়েবসাইট এর নাম প্রচার করতে থাকে। ৩ বছর পর এসে রাসেল সাহেব ফেসবুক ছেড়ে এখন তার ওয়েবসাইট থেকে ব্যবসা করেন।

চেষ্টা করলে সবই সম্ভব। আপনি এটা ভেবে পিছাই পরবেন না যেন আরও অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা আগে থেকেই অনেক পপুলার তাদের অনেক নাম। পিছাই পরলেন তো নিজের কাছে নিজেই হেরে গেলেন। আপনি নিজের থিঙ্কিং বা আইডিয়া নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন কারন আপনার যারা ক্রেতা আছে তারা আপনার থিঙ্কিং পছন্দ করবে যদি আপনার থিঙ্কিং সঠিক হয়। আপনি ও আপনার নিজের থিঙ্কিং এ ব্যবসা করেন অপরের টা কপি না করে নিজের বুদ্ধি দিয়ে নিজের ব্যবসা দাড়করান। আপনার ব্যবসার থিঙ্কিং মানুষের পছন্দ হলে তখন ঠিকই আপনার সফলতা আসবে ইনশাল্লাহ।


Share Now:
× Hello!